1. sylhetbbc24@gmail.com : admin : Web Developer
  2. marufmunna29@gmail.com : admin1 : maruf khan munna
  3. scholarscarecoaching@gmail.com : admin2 : S M Rakib
শুক্রবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২১, ১১:৩৯ অপরাহ্ন

বাহুবলে হাত-পা বেঁধে প্রেমিককে নির্যাতন: প্রেমিকাসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

  • সিলেট বিবিসি ২৪ ডট কম : নভেম্বর, ২, ২০২০, ১০:৪৪ am

  • হবিগঞ্জের বাহুবলে ফোন করে প্রেমিককে বাড়িতে ডেকে নিয়ে হাত-পা বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় প্রেমিকা ও তার মাসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

    সোমবার (২ নভেম্বর) দুপুরে বাহুবল থানায় মামলাটি দায়ের করেন নির্যাতনের শিকার কলেজছাত্রের মা রাবিয়া খাতুন।

    বিষয়টি নিশ্চিত করে বাহুবল থানার ওসি ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মো. আলমগীর কবির বলেন- ‘মামলায় প্রেমিকা মাহফুজা আক্তার লিজা ও তার মা জাহানারা আক্তার লিপিসহ ১০ জনের নাম উল্লেখ করা হয়। এছাড়া অজ্ঞাত আরও ৭ জনকে আসামী করা হয়েছে।

    তিনি বলেন- ‘এ ঘটনায় রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো- মেয়ের ফুফাতো ভাই সালাহউদ্দিন ও চাচাতো ভাই মঈন উদ্দিন। তবে প্রধান দুই অভিযুক্ত প্রেমিকা ও তার মাসহ বাঁকি আসামীরা পলাতক রয়েছে।’

    ফয়সলের বাবা আহসান উল্ল্যাহ দাবি করেন ফয়সল অনেকটা মানষিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছে। সে কাউকেই চিনতে পারছে না। এছাড়া মাঝে মধ্যে চিৎকার করে উঠছে।

    তিনি বলেন- ‘লিজা আমার ছেলেকে মোবাইল ফোনে তাদের বাড়ির পাশে নিয়ে যায়। পরে তার স্বজনরা ফয়সলকে বেঁধে এমন বর্বর নির্যাতন করেছে। পুলিশের মাধ্যমে আমার ছেলেকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করি। কিন্তু তার অবস্থা গুরুত্বর হওয়ায় চিকিৎসকরা তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট ওসমানি মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানে তার উন্নত চিকিৎসা চলছে। এছাড়া সে অনেকটা মানষিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছে। রাতে তার সিটি স্ক্যান করা হয়েছে।’

    ফয়সলের বোন হানিফা আক্তার বলেন- ‘ফয়সল মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছে। সে কাউকে চিনতে পারছে না। কারও সাথে কথা বলছে না। বাচ্চাদের মতো ব্যবহার করছে। প্রতিনিয়ত তার অবস্থার অবনতি হচ্ছে।’

    বাহুবল উপজেলার দ্বিমুড়া গ্রামের কুয়েত প্রবাসী আব্দুল হাইয়ের মেয়ে মাহফুজা আক্তার লিজার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল চুনারুঘাট উপজেলার হাসেরগাঁও গ্রামের আহসান উল্লার ছেলে কলেজছাত্র ফয়সল মিয়ার।

    গত শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) দেখা করার কথা বলে ফয়সলকে নিজেদের বাড়িতে ডেকে নিয়ে যান প্রেমিকা লিজা। পরে লিজার স্বজনরা চোর দাবি করে ফয়সলের হাত-পা খুঁটিতে বেঁধে নির্যাতন করেন। সেই নির্যাতনের ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়েও দেয়া হয়েছে। সেদিনের করা ভিডিও রোববার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হয়েছে ভাইরাল।

    ফয়সলকে নির্যাতনের খবর পেয়ে পরদিন শনিবার (৩১ অক্টোবর) পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয় সিলেট ওসমানি মেডিক্যাল কলেজে।

    সিলেটবিবিসি/রাকিব/ডেস্ক/অক্টোবর ০২,২০২০

    facebook comments


    © All rights reserved © 2020 sylhetbbc24.com
    পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ