1. sylhetbbc24@gmail.com : admin : Web Developer
  2. marufmunna29@gmail.com : admin1 : maruf khan munna
  3. faisalyounus1990@gmail.com : Abu Faisal Mohammad Younus : Abu Faisal Mohammad Younus
শনিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২১, ১২:৩৩ পূর্বাহ্ন

প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে প্রেমিকাকে দিয়ে গণধর্ষণ মামলা করালেন প্রেমিক: এখন নিজেই আসামি

  • সিলেট বিবিসি ২৪ ডট কম : অক্টোবর, ১৯, ২০২০, ২:৫১ pm

  • ফেনীর সোনাগাজীতে নবম শ্রেণির (১৫) এক ছাত্রী প্রেমিকাকে দিয়ে প্রতিপক্ষের লোকদের বিরুদ্ধে গণধর্ষণ মামলা সাজাতে গিয়ে আরিফুল ইসলাম সাকিব (২৪) নামে এক যুবক ধর্ষণ মামলায় নিজেই ফেঁসে গেছেন।

    রোববার রাতে তাকে সোনাগাজী সদর ইউনিয়নের পূর্ব সুজাপুর বজল সারেং বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

    সোমবার সকালে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে ওই ছাত্রীর শারীরিক পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

    পুলিশ জানায়, পূর্ব সুজাপুর গ্রামের বজল সারেং বাড়ির মৃত আবুল কাসেমের ছেলে আরিফুল ইসলাম সাকিব একই গ্রামের এক প্রবাসীর স্কুলপড়ুয়া নবম শ্রেণির ছাত্রীর সঙ্গে দীর্ঘ ৮ মাস পূর্বে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে। এই সম্পর্কের জেরে গত ২৮ আগস্ট সাকিব ওই ছাত্রীর বাড়িতে গিয়ে তার বসত ঘরের শয়ন কক্ষে বিয়ের আশ্বাসে তাকে ধর্ষণ করে।

    ওই দিন ছাত্রীর মা তার নানার মৃত্যুজনিত কারণে তার নানার বাড়িতে ছিলেন। ছাত্রীর সঙ্গে তার ছোটবোন থাকলেও বিষয়টি কাউকে না জানানোর হুমকি দেয় সাকিব।

    এদিকে সাকিবের সঙ্গে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে স্থানীয় কয়েক যুবকের বিরোধ চলে আসছে। এ বিরোধকে কেন্দ্র করে সে ওই ছাত্রীকে পালাক্রমে ওই ৭-৮ জন যুবক ধর্ষণ করেছে মর্মে থানায় অভিযোগ দিতে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে। সাকিবের কথামতো এক মাস পূর্বে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে মর্মে ৭-৮ জনের নাম উল্লেখ করে গত ১৫ অক্টোবর সোনাগাজী মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে ওই ছাত্রী।

    একই রাতে ছাত্রীর মা তার মেয়ে গণধর্ষণের শিকার হয়নি দাবি করে থানা থেকে তার মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে যান। সাকিব ওই ছাত্রী গণধর্ষণের শিকার হয়েছে মর্মে তার মোবাইলে ধারণকৃত ভিডিওর জবানবন্দি ফেনীর বিভিন্ন সাংবাদিকদের কাছে প্রেরণ করে। বিষয়টি নিয়ে সাংবাদিকরা তৎপর হয়ে উঠলে পুলিশও তৎপর হয়ে উঠে।

    সোনাগাজী মডেল থানার ওসি সাজেদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, পুলিশ অনুসন্ধান চালিয়ে ছাত্রী ও ছাত্রীর মাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে থলের বিড়াল বেরিয়ে আসে। এছাড়া সাকিবের মোবাইল ফোনে ভিডিও এবং কথোপকথনের রেকর্ডিং পর্যালোচনা করলে রহস্য উদঘাটন হয়। এক পর্যায়ে ওই ছাত্রী তাকে ধর্ষণ ও সাকিবের পাতানো গণধর্ষণ মামলার বিষয়টি স্বীকার করে মামলা দায়ের করে।

    সিলেটবিবিসি/রাকিব/ডেস্ক/অক্টোবর ১৯,২০২০

    facebook comments












    © All rights reserved © 2020 sylhetbbc24.com
    পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ