1. sylhetbbc24@gmail.com : admin : Web Developer
  2. marufmunna29@gmail.com : admin1 : maruf khan munna
  3. faisalyounus1990@gmail.com : Abu Faisal Mohammad Younus : Abu Faisal Mohammad Younus
রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১২:২৮ অপরাহ্ন

গোলাপগঞ্জ ছাত্রদলের কমিটিতেও পদ বাণিজ্য, অভিযোগের তীরে বিদ্ধ সুমন-নাদিম

  • সিলেট বিবিসি ২৪ ডট কম : অক্টোবর, ৫, ২০২০, ২:৩৪ pm

  • সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলা, পৌর ও ঢাকা দক্ষিণ সরকারি কলেজ ছাত্রদলের কমিটি গঠনে অভিযোগের শেষ নেই। অছাত্র, অযোগ্য, বহিরাগত ও বিবাহিতদের দিয়ে বাণিজ্যের মাধ্যমে এসব কমিটি গঠন করা হয়েছে। এতে বাদ পড়েছেন ত্যাগী, শিক্ষিত ও মামলা-হামলার শিকার নির্যাতিত নেতাকর্মীরা।মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে কমিটিগুলোর অনুমোদন দিয়েছেন সিলেট জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আলতাফ হোসেন সুমন ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দিলোয়ার হোসেন নাদিম।

    এসব অভিযোগ উল্লেখ করে সোমবার সিলেট জেলা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করেছেন গোলাপগঞ্জ ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। এসময় লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ঢাকা দক্ষিণ সরকারি কলেজ ছাত্রদল নেতা কামিল আহমদ তালুকদার।

    লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, অনিয়মের মাধ্যমে কমিটি গঠনের বিষয়ে গত ১৭ সেপ্টেম্বর ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরাবরে দপ্তর সম্পাদক আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারীর কাছে অভিযোগ দায়ের করেছি। অভিযোগের অনুলিপি ১৯ সেপ্টেম্বর ছাত্রদল সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক টিমের প্রধান ওমর ফারুক কাওসার এর হাতে দিয়েছি। কিন্তু এতদিন পার হলেও এসব কমিটির বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি।

    গোলাপগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের কমিটিতে অছাত্র ও এসএসসি সার্টিফিকেট বিহীন অনেককে স্থান দেয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়। উপজেলা কমিটির আহবায়ক তানজিম আহাদ এসএসসি পাস করলেও বর্তমানে তিনি অছাত্র। সদস্য সচিব ফাহিম চৌধুরীও একজন অছাত্র। তিনি মাত্র ৮ম শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপড়া করেছেন। এসএসসি’র সার্টিফিকেট জাল করে নিজেকে ছাত্র হিসেবে প্রমাণ করেছেন। কমিটির ৩নং যুগ্ম আহবায়ক আব্দুর রহমান তিনিও একজন অছাত্র, ৭ম শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপড়া করেছেন। তারও প্রদানকৃত সার্টিফিকেটটি ভূয়া। ৫নং যুগ্ম আহবায়ক জাকারিয়া শাহজাহান তিনি এসএসসি’র জাল সার্টিফিকেট জমা দিয়ে পদবী পেয়েছেন। অথচ অত্র গোলাপগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের কমিটিতে দীর্ঘদিন ধরে জড়িত, পরিক্ষীত, ত্যাগী, নির্যাতিত, শিক্ষিত ছাত্রনেতারা রয়েছেন। কিন্তু তাদেরকে কমিটির অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি।

    এছাড়া ঢাকা দক্ষিণ সরকারী কলেজ ছাত্রদলের সদস্য সচিব মতিউর রহমান মুমিন কলেজের ছাত্র নয়। তিনি কলেজের ভূয়া প্রত্যয়ণপত্র দিয়ে নিজেকে কলেজের ছাত্র প্রমাণ করে ছাত্রদলের পদবী লাভ করেছেন। কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুর রহিম, মতিউর রহমান মুমিনের ছাত্রত্ব সম্পূর্ন অস্বীকার করেছেন। ইতোমধ্যে কলেজের প্যাড ও ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের স্বাক্ষর জালিয়াতি করায় মতিউর রহমান মুমিনের বিরুদ্ধে কলেজ থেকে প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে তিনি জানান। ১৮নং সদস্য আব্দুল মুহাইমিন ইসলাম রাহি কলেজের ছাত্র নয়, তিনি বহিরাগত। এছাড়াও কমিটিতে সিনিয়র-জুনিয়র মেনটেইন না করেই অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। যারা রাজনীতিতে নতুন তাদেরকে প্রথম সারিতে রাখা হয়েছে, আর যারা পুরাতন, দীর্ঘদিন থেকে কলেজের ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িত তাদেরকে অবমূল্যায়ন করা হয়েছে।

    লিখিত বক্তব্যে আরো বলা হয়, গোলাপগঞ্জ পৌর ছাত্রদলের ৫নং যুগ্ম আহবায়ক মিজানুর রহমান একজন বিবাহিত, তার একটি সন্তান রয়েছে। ৪নং যুগ্ম আহবায়ক ফয়েজ আহমদ পৌর জাসাসের সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করছেন।

    সিলেট জেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক টিম গোলাপগঞ্জ উপজেলা, পৌর ও কলেজ ছাত্রদলে ত্যাগী, পরিক্ষিত, শিক্ষিত ও নির্যাতিত দেখে প্রস্তাবিত কমিটি জমা দিলেও জেলার সভাপতি ও ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক পাশ কাটিয়ে তাদের মনগড়া কমিটি করেছেন। সাংগঠনিক টিমের কমিটির সাথে অনুমোদনকৃত কমিটির কোন মিল নেই। মোটা অংকের অর্থনৈতিক লেনদেনের মাধ্যমে অশিক্ষিত, অছাত্র, অযোগ্য, বহিরাগত, বিবাহিতদের দিয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে।যাদের দিয়ে কমিটি করা হয়েছে তারা এখন পর্যন্ত রাজপথে কোন মিছিল মিটিং করতে পারেনি। গোলাপগঞ্জ ছাত্রদলের তৃণমূলের কর্মীরা তাদের প্রত্যাখান করেছে এবং অবাঞ্চিত ঘোষনা করেছে।

    জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আলতাফ হোসেন সুমন ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দিলোয়ার হোসেন নাদিম ছাত্রদলের গঠনতন্ত্র বিরোধী কাজ করে সম্পূর্ণ অনৈতিকভাবে নিজস্ব ফায়দা হাসিলের লক্ষ্যে ও নিজেদের বলয় বড় করতে কমিটি অনুমোদন দিয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবি জানান উপস্থিত ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। সিলেট জেলার আওতাধীন ৩৩ ইউনিটে প্রায়ই এরকম অনৈতিকভাবে কমিটি দেওয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয় লিখিত বক্তব্যে।

    গোলাপগঞ্জ উপজেলা, পৌর, কলেজসহ সকল ইউনিটের ভারসাম্যহীন কমিটিকে তদন্ত সাপেক্ষে বাতিল করে নতুন কমিটি দেয়ার জোর দাবি ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।

    এসময় উপস্থিত ছিলেন, জাহেদ আহমদ মান্না, তোফায়েল আহমদ সুমেল, সুবেদ আহমদ, এমরান আহমদ, নাদির আহমদ, রাসেলা আহমদ, জাহিরুল ইসলাম, লাব্বির আহমদ, জাকির আহমদ, জুনেদ আহমদ, সুজন আহমদ সুনু, আবু বক্কর, আহমেদ মজিদ প্রমুখ।

    সিলেটবিবিসি/রাকিব/ডেস্ক/অক্টোবর ০৫,২০২০

    facebook comments












    © All rights reserved © 2020 sylhetbbc24.com
    পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ