1. sylhetbbc24@gmail.com : admin : Web Developer
  2. marufmunna29@gmail.com : admin1 : maruf khan munna
  3. faisalyounus1990@gmail.com : Abu Faisal Mohammad Younus : Abu Faisal Mohammad Younus
বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৫:৪২ অপরাহ্ন

ইকোপার্কে ‘সজারু’ হত্যায় ৯ জনের জেল-জরিমানা

  • সিলেট বিবিসি ২৪ ডট কম : নভেম্বর, ১৫, ২০২০, ১২:৪১ pm

  • মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলায় বিলুপ্ত প্রজাতির বন্যপ্রাণী শজারু হত্যার অপরাধে ৯ শিকারিকে কারাদণ্ড ও জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এদের মধ্যে দুই শিকারিকে এক মাস করে কারাদণ্ড ও সহায়তার অপরাধে অপর সাতজনকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

    শনিবার রাত ৯টার দিকে মাধবকুণ্ড ইকোপার্কের বাজারিছড়া জঙ্গলে ইউএনও মো. শামীম আল ইমরান ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

    এক মাসের কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- সুবল ভূমিজ (২৫) ও জগ রবি চন্দ্র (২৫)।

    অন্য সাত অর্থদণ্ডকারী হলেন- উকিল সাঁওতাল (৩৫), বুধু সাঁওতাল (২৬), ওমেশ সাঁওতাল (৩০), রমেশ সাঁওতাল (৩২), কার্তিক সাঁওতাল (৩৫), রাম সাঁওতাল (৩০) ও কৃষ্ণ সাঁওতাল (৩৫)। রাতেই তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

    ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, শনিবার সন্ধ্যায় মাধবকুণ্ড ইকোপার্ক এলাকায় একটি শজারু হত্যার অপরাধে ৯ শিকারিকে আটক করেন স্থানীয় ফরেস্ট গার্ডরা।

    খবর পেয়ে ইউএনও ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. শামীম আল ইমরান বন বিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তা শেখর রঞ্জন দাস, বড়লেখা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজ উদ্দিন ও থানার এসআই হযরত আলী ঘটনাস্থলে যান।

    সেখানে আটকরা ভ্রাম্যমাণ আদালতের সামনে বন্যপ্রাণী হত্যার দায় স্বীকার করেন।

    এর পর ভ্রাম্যমাণ আদালত শজারু হত্যায় সরাসরি জড়িত থাকায় ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনে বিওসি কেছরিগুল এলাকার সুবল ভূমিজ ও জগ রবি চন্দ্রকে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন।

    এছাড়া হত্যায় সহায়তা করার অপরাধে অন্য সাতজনকে ১০ হাজার টাকা করে মোট ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করেন আদালত। রাতেই তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

    অন্যদিকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা শেষে ফেরার পথে ইউএনও মো. শামীম আল ইমরান দক্ষিণভাগ উত্তর ইউনিয়নের বিওসি কেছরিগুল এলাকায় টিলা কাটার অপরাধে ফখরুল ইসলামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা করতে পরিবেশ অধিদফতরের উপপরিচালককে নির্দেশ প্রদান করেন।

    বন্যপ্রাণী হত্যায় জেল-জরিমানার সত্যতা নিশ্চিত করে বড়লেখা ইউএনও ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. শামীম আল ইমরান জানান, টিলা ও বন্যপ্রাণী আমাদের প্রকৃতির অবিচ্ছেদ্য অংশ। এগুলো রক্ষায় আমাদের সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। প্রশাসনের এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

    সিলেটবিবিসি/রাকিব/ডেস্ক/নভেম্বর ১৫,২০২০

     

    facebook comments












    © All rights reserved © 2020 sylhetbbc24.com
    পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ